There is no one to wipe away the tears of 90 lakh transport workers

ADVERTISING

There is no one to wipe away the tears of 90 lakh transport workers.Due to the lockdown, there are over 90 lakh transport workers in the country due to lack of public transport. To prevent the transmission of the Corona virus, public transport has been shut down across the country since the 26th of the month. These transport workers are not getting any assistance or staying home.

There is no one to wipe away the tears of 90 lakh transport workers pic

ADVERTISING

Someone is trying to earn money by providing rickshaw to feed the family members for stomach upset. Someone is trying to run the world by selling dubs. In the struggle to survive, one is trying to make money in different ways.

In Lockdown, nearly 90 million road and shipping workers are living unemployed due to the lack of public transportation across the country. Although welfare funds have been donated to the welfare fund in this sector every year, the workers have been accused of failing to support the owners and labor organizations in such a crisis.

Since the 26th of last month, millions of workers and their families have been rendered helpless by mass transit across the country. These workers are struggling to survive in different ways. The water is now flowing in their eyes.

ADVERTISING

Meanwhile, the Minister for Shipping called for a meeting with the launch owners to provide food and financial support to the beginners.

See details below …..

৯০ লাখ পরিবহনশ্রমিকের চোখের জল মোছার কেউ নেই

লকডাউনের কারনে সারা দেশে গণপরিবহন্নবন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে ৯০ লাখ পরিবহন শ্রমিক । করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গেল মাসের ২৬ তারিখ থেকে সারা দেশে গণপরিবহন বন্ধ থাকায়, বন্ধ হয়ে আছে সড়ক পথের ৭০ ও নৌপথের ২০ লাখ শ্রমিকের রুটি-রুজি। এসব পরিবহণ শ্রমিকেরানা পাচ্ছে কোনও প্রকার সহায়তা আর না পারছে ঘরে বসে থাকতে ।

পেটের দায়ে পরিবারের সদস্যদের খাবার যোগাতে কেউ রিকশা চালিয়ে টাকা উপার্জন করার চেষ্টা করছে । আবার কেউ ডাব বিক্রি করে সংসার চালানোর চেষ্টা করছে । বেঁচে থাকার সংগ্রামে একেকজন একেক ভাবে টাকা উপার্জন করার চেষ্টা করে যাচ্ছে ।

লকডাউনে সারা দেশে গণপরিবহন না চলায় বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে সড়ক ও নৌপরিবহনের প্রায় ৯০ লাখ শ্রমিক। বছরে এ খাতে কল্যাণ ফান্ডে হাজার কোটি টাকা চাঁদা আদায় হলেও, মহামারীর এমন সংকটে মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলোকে পাশে না পাওয়ার অভিযোগ শ্রমিকদের।

গেলো মাসের ২৬ তারিখ থেকে সারা দেশে গণপরিবহণ বন্ধ থাকাতে অসহায় হয়ে পড়েছে লাখো শ্রমিক ও তার পরিবার । এসব শ্রমিকেরা বিভিন্ন ভাবে বেঁচে থাকার সংগ্রাম করে যাচ্ছে । তাদের চোখে এখন জল টলমল করছে ।

এদিকে, নৌশ্রমিকদের খাবার সরবরাহ ও আর্থিক সহায়তা দিতে লঞ্চ মালিকদের নিয়ে সভা করার কথা জানান নৌপরিবহন মন্ত্রী।

নৌপরিবহন মন্ত্রী বলেন, ঘাটে থাকা শ্রমিকদের ১০ দিনের খাবার দেয়া হয়েছে। এছাড়া লঞ্চ মালিকদের সাথে সভা হয়েছে, তারা ব্যবস্থা নিবে।

তবে মালিক সমিতি ও শ্রমিক সংগঠনগুলোর দাবি, তাদের একার পক্ষে শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানো কঠিন। এ খাতে সরকারি প্রণোদনা চাইলেন তারা।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গেল মাসের ২৬ তারিখ থেকে সারা দেশে গণপরিবহন বন্ধ থাকায়, বন্ধ হয়ে আছে সড়ক পথের ৭০ ও নৌপথের ২০ লাখ শ্রমিকের রুটি-রুজি।

করোনা ভাইরাসের লকডাউন অভ্যাহত থাকায় মোট পরিবহনের মাত্র ২ থেকে ৩ শতাংশ রাস্তায় চলছে । এই পরিবহন সংকটে প্রতিদিন প্রায় ৫শ কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে বলে ধারনা করা হচ্ছে ।

There is no one to wipe away the tears of 90 lakh transport workers.

The Minister for Shipping said that the workers at the ferry were given 10 days’ food. Besides, there is a meeting with the launch owners, they will take action.

However, the owners’ associations and labor unions demand that it is difficult for them to stand by their workers. They want government incentives in this sector.

To prevent the transmission of the Corona virus, public transport has been shut down across the country since the 26th of the month.

With the lockdown of the Corona virus continuing, only 2 to 3 percent of total transportation is on the road. The transport crisis is estimated to cost around Rs 5 crore a day.

Source: Online/ Somoy TV News

Corona VirusLive UpdateBD

Click & World update of the Corona virus here

More News:

The OC withdrawn after the funeral procession failed

312 people infected with Corona virus in Bangladesh in 24 hours And died 07

Mobile court in disguise of the farmer

Maha Ramadan and Iftar Schedule 2020

ADVERTISING