Narayanganj: 18 members of the doctor’s family are affected by corona

ADVERTISING

Narayanganj: 18 members of the doctor’s family are affected by corona. In Narayanganj, 18 members of the family of a medical officer of the Civil Surgeon’s Office tested positive for Corona (Covid-19). While health workers across the country are fighting selflessly against the coronavirus. Just when a health worker is infected with corona, it becomes unbearable for people in the society with their family.

Narayanganj: 18 members of the doctor's family are affected by corona pic

ADVERTISING

A health worker heals the common man through life and death. But when a health worker is ill, people do not want to stand by his side but want to leave the area with their families. What a strange thing! The people of the world.

It is learned that 18 members of the family of a medical officer of the Civil Surgeon’s Office in Narayanganj have been infected with Corona. Meanwhile, locals are throwing bricks at the house to evict the family from the area.

The victim’s family said that when the locals found out, their family was affected by the corona. Since then, some people have been trying to leave their area by throwing bricks at the house.

ADVERTISING

See details below …..

More News:

Gazipur: 32 policemen were infected with corona

Pran RFL Group Job Circular 2020

One arrested for strangling four people in Gazipur

নারায়ণগঞ্জ: চিকিৎসক পরিবারে ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত

নারায়ণগঞ্জে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের এক মেডিকেল অফিসারের পরিবারের ১৮ জন করোনায় (কোভিড-১৯) পজিটিভ হয়েছেন। যখন দেশজুড়ে স্বস্থ্যকর্মীরা করোনাভাইরাস মোকাবেলায় নিঃস্বার্থভাবে  যোদ্ধ করে যাচ্ছে । ঠিক তখনই কোন স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হলে তাদের পরিবার নিয়ে সমাজে মানুষের কাছে অসহনীয় হয়ে উঠছে ।

একজন স্বাস্থ্যকর্মী জীবন-মৃত্যুর মাঝে থেকে সাধারণ মানুষকে সেবা দিয়ে সুস্থ্য করে তোলে । অথচ একজন স্বাস্থ্যকর্মী যখন অসুস্থ্য হচ্ছে মানুষ তার পাশে না দাঁড়িয়ে বরং তাদের পরিবারসহ এলাকা ছাড়া করতে চাইছে । কি অদ্ভূত !  দুনীয়ার মানুষগুলো ।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের এক মেডিকেল অফিসারের পরিবারের ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে । এরমধ্যে স্থানীয় লোকজন পরিবারটিকে এলাকা থেকে বিতাড়িত করার জন্য বাড়িরর দিকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করছে ।

ভুক্তভোগী পরিবারটি জানায় , যখন স্থানীয় লোকজন  জানতে পারে – তাদের পরিবারটি করোনায় আক্রান্ত হয়েছে । তারপর থেকেই বাড়ির দিকে ইট-পাটকেল ছুড়ে তাদের এলাকা ছাড়া করার চেষ্টা করছে কিছু লোকজন ।

তবে বিষয়টি জানতে পেরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন এবং মাইকে ঘোষণা দিয়ে এলাকাবাসীকে শান্ত করেন। ইউএনও’র হস্তক্ষেপে এলাকাবাসীর রোষানল থেকে রক্ষা পেয়েছেন করোনায় আক্রান্ত হওয়া ১৮ জনের পরিবারটি।

গতকাল মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) ওই মেডিকেল অফিসার বলেন, সন্ধ্যার দিকে বাড়িতে কে বা কারা যেন ঢিল ছুঁড়েছে। বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হয়েছে । থানা থেকে পুলিশও এসে ঘুরে গিয়েছে। আমাকে প্রশাসন থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে পুলিশ এবং সেনাবাহিনী নিয়মিত এখানে আসা যাওয়া করবে।

তিনি আরও বলেন, এমনিতেই তাদের পরিবারের সবাই করোনায় আক্রান্ত হয়েছে । এই মুহূর্তে তাদের মানসিক অবস্থা মোটেও ভাল নয় । এই সময়ে তাদের সাপোর্ট ও সাহায্য দরকার । অথচ এলাকায় তারা স্থানীয় হওয়া সত্যেও আশেপাশের লোকজন তাদের সাথে এমন ব্যবহার করছে ।

তিনি জানান, চিকিৎসক পরিবারের বসবাসরত ওই বাড়িটি ইতিমধ্যেই লকডাউনে রাখা হয়েছে । কাউকে বাইরে যেতে দেওয়া হয়না এবং স্বাস্থ্যকর্মী ছাড়া কাউকে বাড়ির ভেতরেও আসতে দেওয়া হয়না । তারপরেও কেন তাদেরকে উৎখাতের চেষ্টা করছে মানুষ ।

Narayanganj: 18 members of the doctor’s family are affected by corona

However, on learning of the matter, Sadar Upazila Nirbahi Officer (UNO) Nahida Barik went to the spot and handled the situation and calmed down the locals by announcing Mike. UNO’s intervention has saved the family of 18 people affected by Corona from the wrath of the locals.

On Tuesday (April 28), the medical officer said that someone had thrown stones at the house in the evening. The matter has been reported to the administration. Police also came from the police station and turned around. I have been assured by the administration that the police and army will come and go here regularly.

He added that all the members of their family have been affected by Corona. At the moment their mental state is not good at all. They need support and help at this time. But despite the fact that they are locals in the area, the people in the vicinity are treating them like that.

He said the house where the doctor’s family lives has already been locked down. No one is allowed to go out and no one is allowed inside the house except the health worker. Even then why people are trying to overthrow them.

ADVERTISING